শান্তির ধর্ম প্রকৃত ইসলামের উপর একটি অন্যন্য সাধারন ওয়েবসাইট


গনতন্ত্র যেখানে এবং যখন অকার্যকর


সবাই গনতন্ত্রের কথা বলে, আমিও বলি। আধুনিক যুগে রাস্ট্র পরিচালনায় গনতন্ত্র একটা চমৎকার পদ্ধতি। অন্য কোন পদ্ধতি আধুনিক যুগে রাস্ট্র পরিচালনায় এতটা সফলতা দেখাতে পারেনি। প্রকৃত গনতন্ত্রে রাজা, প্রজা, ধনী, দরিদ্র এক হয়ে যায়; অর্থহীন গর্ব-অহংকার করার কিছু থাকে না।

যেমন আমেরিকা, ব্রিটেন, ফ্রান্স, অস্ট্রেলিয়া, জাপান, এমনকি আমাদের প্রতিবেশি দেশ ভারতেও গনতন্ত্রের সুফল সেদেশের মানুষ বেশ ভালভাবেই ভোগ করছে। আমাদের দেশে প্রকৃত গনতন্ত্র এখনও প্রতিস্টিত হয়নি। প্রধান দুটি দল (আওয়ামীলীগ এবং বিএনপি) যদিও গনতন্ত্রের কথা বলে কিন্তু প্রকৃতপক্ষে ওখানে চলছে পরিবারতন্ত্র যা দেশের জন্য মোটেও ভাল না।

আমরা দুঃখের সাথে লক্ষ্য করছি উভয় দলেই শিক্ষিত বা উচ্চশিক্ষিত অনেকেই আছেন যারা সাময়িক কিছু ফায়দা হাসিলের জন্য চামচাগীরী করে নিজেদের বিকেকের বিরুদ্ধে পরিবারতন্ত্রকেই এ পর্যন্ত সমর্থন দিয়ে আসছে! বংগবন্ধু এবং জিয়াউর রহমান দেশের জন্য যে অবদান রেখেছেন তা আমি অত্যন্ত শ্রদ্ধার সাথে স্বরন করছি। ইতিহাসের কঠিন সন্ধিক্ষনে তাঁরা ভালভাবেই তাদের স্ব স্ব দায়িত্ব পালন করেছেন। হয়ত তাদেরও কিছু ভুল-ত্রুটি হয়েছিল কিন্তু কোন মানুষই ভুল-ত্রুটির উর্ধে না।

কিন্তু তাঁদের নাম ভাংগিয়ে তাঁদের পরিবারের সদস্যদের পরিবারতন্ত্র কামেয় করা একদম ঠিক না। আর তা এমনকি তাদের জন্যও কল্যানকর না কারন তাহলে আপনারা সবসময় থাকবেন সবচেয়ে ঝুঁকিতে। যেমন গতবারে আমরা দেখলাম বিএনপির অন্য নেতাদের তেমন কিছুই হোল না কিন্তু জনাব তারেক রহমানকে কঠিন নির্যাতন ভোগ করতে হোল। অনুরুপভাবে শেখ হাসিনা এবং তাঁর পরিবার যেমন তাঁর পুত্র এবং কন্যা থাকেন সবচেয়ে নিরাপত্তা ঝুকিতে। পরিবারতন্ত্র না থাকলে ওনাদেরও অতসব ঝুকি-জামেলা থাকত না।

দেখুন না, মানব ইতিহাসের দুই মহানায়ক মহাত্তা গান্ধী এবং নেল্‌সন ম্যান্ডেলার পরিবারের সদস্যরা কি পরিবারতন্ত্র কায়েম করেছে তাদের দেশে! এরুপ আরো কিছু মহানায়কের উদাহারনও আমরা দিতে পারি। যাহোক, সবার ভালোর জন্যই দেশের সাধারন জনগনের উচিত পরিবারতন্ত্র এবং এর ধারক-বাহক এবং নির্লজ্জ চাটুকারদের ভদ্রভাবে বর্জন করা।

দেশের রাজনীতির ধারা প্রধান দুটি দলে বিভক্ত এটা কিন্তু খুব ভাল আমাদের জন্য, অনেকটা আমেরিকার মতই অবস্থা (অনেক ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র দল থাকা দেশের জন্য মংগলজনক না)। এক দল ক্ষমতায় থাকবে আর আরেক দল বিরোধী আসনে থাকবে যা খুবই ভাল গনতন্ত এবং দেশের জন্য। এখানে কেও ফেরেশতা না কাজেই বিরোধী দল সরকারের ভুল-ত্রুটি ধরিয়ে দিয়ে দেশের জন্য অবদান রাখবে। শক্তিশালী বিরোধী দল থাকার কারনে কোন সরকারেরই স্বৈরাচার এবং দুর্নিতীগ্রস্থ হওয়া সম্ভব না।

কিন্তু আমাদের দেশে ধর্মের নামে তথাকথিত বেশ কিছু ধর্মভিত্তিক দল মানুষকে বিভ্রান্ত করছে যা সুশাসন এবং গনতন্ত্রের জন্য মারাত্বক হুমকি। যেমন ধরুন মিশরের কথাইঃ ব্রাদারহুড অনেক দিন ধরে আমাদের দেশের জামাতের মতই  তথাকথিত “ইসলাম” কায়েম করতে অগ্রসর হচ্ছিল। গনতান্ত্রিক পদ্ধতিতে ভোটে জিতে সরকারও গঠন করেছিল তারপর তাদের আসল চেহারা মিশরের মানুষ দেখতে শুরু করে!

জামাত আর ব্রাদারহুড হল একই কয়েনের দুই পিঠ! কিছু অন্ধবিশ্বাসী মোল্লাদের জংগীবাদী ইসলাম। মিশরের দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনা তা প্রতিহত করেছে। আমরা মিশরের দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনাকে সাধুবাদ জানাই।

আবার দেখুন ইরানেও কিন্তু ভোট এবং নির্বাচন হয় কিন্তু মোল্লারা ছাড়া সেখানে অন্য কারো ক্ষমতায় যাওয়া সম্ভব না। মিশরের মোল্লা আর ইরানের মোল্লাদের মধ্যে আকাশ-পাতাল পার্থক্য, একদল আরেক দলকে মুসলমাই মনে করে না!

অন্ধ বিশ্বাসী শিয়া মোল্লারা কি ভয়ংকর একটা অবস্থা সেখানে তৈরি করেছে। তাই ধর্মের দোহাই দিয়ে কোন রাজনীতি আমাদের দেশে চলবে না। গনতন্ত্রের কথা জামাত বা অন্য জংগিবাদি দলের মুখে মানায় না। গনতন্ত্র আর পবিত্র ইসলাম ধর্মের নামে ওরা ভন্ডামী করে চলেছে এবং সাধারন মানুষকে ধোকা দিচ্ছে প্রতিনিয়ত।

ধর্ম যেহেতু বিশ্বাসের ব্যাপার, প্রমান করার বিষয় না, তাই ধর্মের নামে সহজ-সরল মানুষকে ধোকা দেওয়া খুবই সহজ। ধর্ম যেহেতু বিশ্বাসের ব্যাপার (অদৃশ্যে বিশ্বাস), প্রমান করার বিষয় না, তাই ধর্ম খুব জটিল বিষয়, প্রকৃত ধর্ম বোঝা সহজ না। আর ধর্মের নামে ধোকাবাজি আর ধর্ম ব্যবসাও চলে খুব সুক্ষভাবে। সাধারন মানুষের পক্ষে ওই সুক্ষ ধোকাবাজি ধরা প্রায় অসম্ভব।

জামাত সহ সব জংগিবাদি দলের ধোকাবাজির কাজকে আমরা দেশে চলতে দিতে পারি না; এ ব্যাপারে আওয়ামীলীগ এবং বিএনপিকে একমত হতেই হবে তা না হলে আমাদের সবাইকে একদিন এর চরম মুল্য দিতে হবে যেমনটি পাকিস্থান, আফগানিস্থান, ইরাক, সিরিয়া ইত্যাদি দেশের মানুষ প্রতিদিন দিচ্ছে!

তাই জামাত সহ সব জংগিবাদি ধর্মভিত্তিক দলকে নিষিদ্ধ করা আমরা সমর্থন করি, প্রিভেনশন ইজ বেটার দেন কিওর, নয় কি? জঙ্গিদের ফাঁসি দেওয়ার চেয়ে জঙ্গি উৎপাদন এবং বিস্তারের কারখানা বন্ধ করা অনেক অনেক ভাল কেননা আমরা সব ধরনের মৃত্যুদন্ডেরও বিরোধিতা করি! সবাইকে অনেক ধন্যবাদ। ডঃ মুসা আলী, February 7, 2015.

Copyright © www.QuranResearchBD.org


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*