শান্তির ধর্ম প্রকৃত ইসলামের উপর একটি অন্যন্য সাধারন ওয়েবসাইট


প্রতিদিন এক ঘন্টা হাটুন যদি সুস্থ থাকতে চান


বহু গবেষনায় এটা প্রমানিত যে একজন মানুষকে সুস্থ থাকতে হলে প্রতিদিন মোটামুটি এক ঘন্টা হাটা উচিত। যারা দৈহিক কাজ করেন যেমন, যে কৃষক মাঠে খেতের কাজ করেন বা রিক্সা বা ঠেলাগাড়ি চালান তার জন্য অনুরুপ হাটার দরকার হয় না। আমরা যারা অফিস-আদালতে কাজ করি, প্রশাসক, বিজ্ঞানী, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, মন্ত্রী, এমপি, প্রধানমন্ত্রী, প্রেসিডেন্ট ইত্যাদি সবারই এই পরিমান হাটা চলা দরকার যদি সুস্থ থাকতে চাই।

কিংবদন্তি বিজ্ঞানী আলবার্ট আইনস্টাইন

ল্যাম্বরগিনী (Lamborghini), বা মার্চিডিস (Mercedes-Benz) বা হেলিকপ্টারে যাতেই চড়ি না কেন ব্যায়াম বা নিয়মিত হাটা চলা না করলে সুস্থ থাকা যাবে না। শরীর সুস্থ না থাকলে টাকা-পয়সা বা ক্ষমতার কি মুল্য বা অর্থ আছে!

কিছুদিন আগে দেখলাম আমাদের সড়ক পরিবহন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাহেব বলেছিলেন রাস্তাঘাটে মটরসাইকেল হল মুর্তিমান আতংক। উনি এ ব্যাপারে সম্পুর্ন সঠিক বলেছেন। আজকাল যান্ত্রিকতার যুগে রাস্তায় একটু শান্তিতে এবং নিরাপদে হাটারও উপায় নেই। চায়নার বিভিন্ন শহরে অলরেডি মটরসাইকেল নিষিদ্ধ করেছে। প্রতিদিন খবরের কাগজ খুলেই দেখা যায় মটরসাইকেল দুর্ঘটনায় অনেক তাজা প্রান ঝরে যাচ্ছে, অনেকে পংগু হচ্ছে।

বেলজিয়ামের রাজা ফিলিপ এবং রানী মাথিলড তাঁদের চার সন্তান, প্রিন্স গ্যাব্রিয়েল, প্রিন্স ইমানুয়েল, প্রিন্সেস এলোনর এবং প্রিন্সেস এলিজাবেথ শহরের রাস্তায় বাইসাইকেল চালাচ্ছেন

মটরসাইকেল,‌ কার ইত্যাদি পরিবেশ দুষনের জন্যও দ্বায়ী। স্বল্প দুরত্ব ভ্রমনের জন্য সবার উচিত বাইসাইকেল ব্যবহার করা। বাইসাইকেল একটি অসাধারন যান! যা পরিবেশ দুষন করে না, সবাই আমরা রাস্তায়  বাইসাইকেল চালালে মটরযানের আধিক্য কমে যাবে ফলে দুর্ঘটনা হবে খুবই কম, বাইসাইকেল অতি সস্তা এবং প্রায় সবার ক্রয় সীমার মধ্যে, বাইসাইকেল চালালে চমৎকার ব্যায়াম হয় ইত্যাদি।

আমরা এটা বলছি না যে মটরযানের দরকার নেই। স্বল্প সময়ে দুরবর্তি ভ্রমনে মটরযান অবশ্যই প্রয়োজন। কিন্তু স্বল্প দুরত্ব ভ্রমনে বাবুগীরি বা তথাকথিত স্টাটাস/প্রেস্টিজ পরিত্যাগ করে আমাদের উচিত বাইসাইকেলের ব্যাপক ব্যবহার বাড়ানো। আমাদের রাস্তাঘাট এমনভাবে যেন নির্মান করা হয় যাতে করে সবাই নিরাপদে বাইসাইকেল চালাতে পারে।

নিরাপদে হাটা-চলার জন্য রাস্তায় (বিশেষকরে শহরের রাস্তায়) অবশ্যই ফুটপাত থাকতে হবে। ফুটপাতকে হকারদের ব্যবহার করতে দেওয়া যাবে না। আমাদের দেশের বড় বড় শহরগু্লোতে যথেস্ট পরিমান পাবলিক পার্ক নেই নিরাপদে এবং সাচ্ছন্দে হাটা-চলার জন্য। শুধু দেশের GDP বাড়ালে তো হবে না; এসব অতি গুরুত্বপুর্ন বিষয়েও সরকারের কর্তাব্যক্তিদের মনোযোগ দেওয়া উচিত।

 


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*