শান্তির ধর্ম প্রকৃত ইসলামের উপর একটি অন্যন্য সাধারন ওয়েবসাইট


গোড়া, ধর্মান্ধ,উগ্রপন্থি মোল্লাদের তুলনায় চিন্তাশীল এবং উদারপন্থি নাস্তিকও ভাল


সাম্প্রতিকালে লেখক অভিজিতের হত্যার আমরা তিব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানিয়েছি কারন আমরা দৃড়ভাবে বিশ্বাস করি আস্তিক বা নাস্তিক যেই হোক না কেন সে যা বিশ্বাস করে একজন মানুষ হিসাবে সেটা প্রকাশ করার স্বাধীনতা তার থাকা উচিত। আমরা এও দৃড়ভাবে বিশ্বাস করি গোড়া, ধর্মান্ধ,উগ্রপন্থি মোল্লাদের তুলনায় একজন চিন্তাশীল এবং উদারপন্থি নাস্তিকও অনেক ভাল। গোড়া ধর্মান্ধ উগ্রপন্থি মোল্লারা যে কতটা জঘন্য, হিংশ্র এবং ভয়ংকর প্রানি হতে পারে তা আমরা আইএস, তালেবান, জেএমবি, আলকায়েদা, বোকো-হারাম ইত্যাদিদের কাছ থেকে প্রতিনিয়ত দেখতে পাচ্ছি।

অবশ্য নাস্তিক ভাই-বোনদের বলব নাস্তিকতা কোন সমাধান না। দেহের চাহিদা যোগাতে পারলেও আপনার আত্ত্বার চাহিদা নাস্তিকতা কোন দিনই যোগাতে পারবে না। যদি আপনি আপনার চিরন্তন আত্ত্বার চাহিদা না যোগাতে পারেন তাহলে আপনিও একজন ব্যর্থ মানুষ। আল্লাহ,খোদা, গড বা ইশ্বর আপনার আমার সংকীর্ন যুক্তির উপর নির্ভরশীল নন। কাজেই শুধু বস্তুতান্ত্রিক বিদ্যা দিয়ে আল্লাহকে খুজে পাওয়া সম্ভব না এটাও নাস্তিকদের বোঝা উচিত।

তারপরেও আমরা বিশ্বাস করি গোড়া, ধর্মান্ধ উগ্রপন্থি মোল্লাদের তুলনায় একজন চিন্তাশীল এবং উদারপন্থি নাস্তিকও অনেক ভাল মানুষ। কারন বহু নাস্তিক মুক্তচিন্তার মানুষ; তারা হিংশ্র না আইএস, তালেবান, জেএমবি, আল কায়েদা, বোকো-হারাম, শিবসেনা ইত্যাদিদের মত।

যুগে যুগে যত নবী-রাসুল  এসেছেন তাঁদের সবাইকে নিয়েই বেশি ঠাট্টা মস্করা করেছে ওই উগ্রপন্থি আস্তিকেরা। নবী-রাসুলদের সবচেয়ে বেশি জ্বালা-যন্ত্রনা দিয়েছে ওই  উগ্রপন্থি আস্তিকেরা। অনেক  নবী-রাসুলকে হত্যা করেছে ওই  উগ্রপন্থি আস্তিকেরা। আমাদের রাসুলকে বেশি কস্ট এবং জ্বালা-যন্ত্রনা দিয়েছিল ততকালীন মক্কার উগ্রপন্থি মুশরিক আস্তিকেরা।

ততকালীন মক্কার উগ্রপন্থি আস্তিকেরা আমাদের রাসুলকে প্রায় মেরেই ফেলেছিল; তাঁকে শেষ পর্যন্ত তাঁর মাতৃভুমি ছেড়ে পালাতে বাধ্য করে ঐ উগ্রপন্থি মুশরিক আস্তিকেরা। কাজেই উগ্রপন্থি আস্তিকেরা দেশ এবং মানবতার কলংক, মানবতার দুশমন, সে যে ধর্মেরই হোক না কেন।

সব ধর্মের মধ্যেই উগ্রপন্থি আস্তিক আছে যেমন হিন্দুদের মধ্যে শিবসেনা, আরএসএস ইত্যাদি। ধর্মের নামে মায়ানমারে উগ্রপন্থি বৌদ্ধরা সেখানকার মুসলমানদের কি ভয়ানক নির্যাতন করছে অথচ বুদ্ধের প্রধান বানিই ছিল অহিংসা এবং জীবে দয়া করা।

কাজেই গোড়া ধর্মান্ধ উগ্রপন্থি মোল্লাদের (সে যে ধর্মেরই হোক না কেন) তুলনায় একজন চিন্তাশীল এবং উদারপন্থি নাস্তিকও অনেক ভাল। আবার অনেক চিন্তাশীল এবং উদারপন্থি নাস্তিক শেষ পর্যন্ত আস্তিকও হয়ে যায়, ভুরি ভুরি উহাহারন রয়েছে। আস্তিকদের মধ্যে সব ধর্মেই যেমন চরমপন্থি আছে, নাস্তিকদের মধ্যেও আবার কিছু চরমপন্থি এবং গোড়া আছে তবে সেটা এই আলোচনার বিষয় না; অন্য কোন আলোচনায় ইনশাআল্লাহ সে বিষয়ে কিছু বলার আশা রইল। ধন্যবাদ। ডঃ মুসা আলী, 04.03.2015  Copyright © www.QuranResearchBD.org

 


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।