শান্তির ধর্ম প্রকৃত ইসলামের উপর একটি অন্যন্য সাধারন ওয়েবসাইট


আল্লাহর কোন শরিক নেই, কথাটা কি সত্য?


মুসলিম সমাজে বহুল প্রচলিত কথা হল আল্লাহর কোন শরিক নেই। কিন্তু পবিত্র কুরআন অনুযায়ী মোটেও তা সত্য নয়। প্রতিটা মানুষ (বনি আদম) মহান আল্লাহর অংশ, তাঁর রুহ বা আত্বার অংশবিশেষ। মহান আল্লাহ আমাদের পিতা আদমকে সৃস্টি করেছিলেন তাঁর নিজের আত্বার অংশ ফুকে দিয়ে। যেহেতু আমরা সবাই আদম আঃ এর সন্তান তাই আমাদের প্রত্যেকের মধ্যেও মহান আল্লাহর আত্বার অংশবিশেষ বিরাজমান।

welovegodmost2

এটা খুবই দুঃখজনক যে ইসলাম ধর্মের অনেক প্রকৃত সত্য আমাদের সমাজে মিথ্যা হয়ে গেছে আর অনেক মিথ্যাই সত্য বলে প্রতিস্টিত হয়েছে! এই কারনেই মুসলমানরা সতধাবিভক্ত এবং অনেক ক্ষেত্রেই এক ফেরকা আরেক ফেরকার সাথে মারামারি, হানাহানি এবং খুনাখুনিতে লিপ্ত। অথচ প্রকৃত ইসলাম, যা আমাদের প্রিয় রাসুল সঃ এনেছিলেন, তা হল সাম্য, মৈত্রী, ক্ষমা, ভালবাসা, উদারতা, বদান্যতা, ধর্মনিরেপেক্ষতা এবং শান্তির ধর্ম। যাহোক যা বলছিলাম, দেখা যাক পবিত্র কুরআন এ ব্যাপারে কি বলেঃ

[১৫ সূরা হিজর২৯-৩০] অতঃপর যখন তাকে ঠিকঠাক করে নেব এবং তাতে আমার রূহ ফুকে দেব, তখন তোমরা তার সামনে সেজদায় পড়ে যেয়ো তখন ফেরেশতারা সবাই মিলে সেজদা করল।

[৩৮ সূরা ছোয়াদ ৭২-৭৩] যখন আমি তাকে সুষম করব এবং তাতে আমার রূহ ফুঁকে দেব, তখন তোমরা তার সম্মুখে সেজদায় নত হয়ে যেয়ো। অতঃপর সমস্ত ফেরেশতাই একযোগে সেজদায় নত হল

[৩২ সূরা সেজদাহ ৯] অতঃপর তিনি (আল্লাহ) তাকে সুষম করেন, তাতে তাঁর রূহ ফুঁকে দেন এবং তোমাদেরকে দেন কর্ণ, চক্ষু অন্তঃকরণ। তোমরা সামান্যই কৃতজ্ঞতা প্রকাশ কর।

কোরআনে এরুপ আরো অনেক আয়াত আছে। কাজেই মহান আল্লাহর কোন শরিক নেই, কথাটা সত্য নয় বরং প্রতিটা মানুষ (বনি আদম) মহান আল্লাহর অংশ, তাঁর রুহ বা আত্বার অংশবিশেষ।

অবশ্য আপনি এ ব্যাপারে যেভাবে বুঝুন বুঝতে থাকুন, আমি মোটেও দাবী করছি না যে আমার বুঝই একমাত্র সত্য। আমার বুঝে ভুলও থাকতে পারে। আসুন সবাই মিলে আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি যেন আমরা ইসলামের সঠিক পথ পাই। আমিন। ধন্যবাদ।


One Brilliant Comment - Join Discussion Now!

  1. শাকিল খান says:

    আশহাদু আল লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহ দাহু লা শারিকা লাহু ওয়া আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান আবদুহু ওয়া রাসুলুহ।
    এই “লা শারিকা লাহু” র ব্যাখ্যা কি হবে?

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।