শান্তির ধর্ম প্রকৃত ইসলামের উপর একটি অন্যন্য সাধারন ওয়েবসাইট


অন্ধ বিশ্বাসীরা কতটা জঘন্য এবং ভয়ংকর হতে পারে!


পৃথিবীতে সব ধর্মেই অন্ধ বিশ্বাসী ভয়ংকর সন্ত্রাসী আছে তবে বর্তমান বিশ্বে ইসলাম ধর্মে মনে হয় অন্ধবিশ্বাসী ভয়ংকর সন্ত্রাসীর সংখ্যা অনেক বেশি। বিভিন্ন দেশে যেমন তালেবান, আল কায়েদা, আইএস, বোকো হারাম, জেএমবি ইত্যাদির অস্তিত্ব ইসলামী সন্ত্রাসীদের উপস্থিতি প্রমান করে। আমাদের দেশে ওসব সন্ত্রাসীরা বিভিন্ন নামে বা বিভিন্ন পরিচয়ে শান্তির ধর্ম মহান ইসলাম ধর্মের কলংক ঘটাচ্ছে।

ISIS-beheading

একটা বই পড়ছিলাম, “ইসলামী আকিদা ও ভ্রান্ত মতবাদ-লেখক মাও. হেমায়েত উদ্দীন” তাতে এই অন্ধ বিশ্বাসী সন্ত্রাসী তথাকথিত মওলানা আমাদের দেশের বিভিন্ন পীর আওলীয়াদের (যেমন সুরেশ্বরী, আটরশী, এনায়েতপুরী, চন্দ্রপুরী, দেওয়ানবাগী, রাজারবাগী ইত্যাদি) সম্পর্কে বলতে গিয়ে লিখেছে, “ওসব পীর এবং তাদের মুরীদরা সর্বসম্মতিক্রমে কাফের এবং মুরতাদ! ওদেরকে হত্যা করা শত কাফেরকে হত্যা করার চেয়েও উত্তম। কেননা এ ধরনের লোক দ্বারা প্রভুত ক্ষতি সাধিত হয়ে থাকে।“

একই বইয়ের অন্যত্র লিখেছে, “ তাদেরকে তওবা করতে বলা হবে। যদি তওবা করে তাহলে তো ভালই, অন্যথায় তাদেরকে হত্যা করা হবে। অধিকাংশ উলামায়ে কেরামের মতে একবার ওসব আকীদা প্রমানের পর তওবার সুযোগ দেওয়া ছাড়াই কতল করে দেওয়া হবে। তবে কেউ কেউ তওবার সুযোগ দেওয়ার পর হত্যা করার অভিমতও ব্যক্ত করেছেন।“

অর্থাৎ তওবা করলেও তাদের কতল করা হবে! ওসব অন্ধবিশ্বাসী সন্ত্রাসীরা নিজেদেরকে আহলুস্‌ সুন্নাত ওয়াল জামাআত বলেও নিজেদের পরিচয় দেয়। ওদের অন্ধ বিশ্বাসটাই বড়; অন্য কোন বিশ্বাস বা মতের কোনই মুল্য নেই ওদের কাছে!  নামে কি যায় আসে; তালেবাল, আল কায়েদা, আইএস, বোকো হারাম, জেএমবি, আহলুস সুন্নাত ওয়াল জামাআত ইত্যাদি একই জিনিস!

ধর্মের নামে যত রাজনৈতিক দল বাংলাদেশে আছে তা নিশিদ্ধ করা অতি জরুরী ধর্ম রক্ষার স্বার্থেই। সারা পৃথিবীর সমস্থ বিবেকবান প্রকৃত ধার্মিক এবং সত্যপন্থি মানুষকে ওসব সন্ত্রাসীদের (মুসলমান নামের কলংক)  কঠরভাবে দমন করতে হবে। দেশের আনাচে কানাচে চিরুনী অভিযান চালিয়ে ওসব সন্ত্রাসীদের খুজে বের করতে হবে এবং আজীবন জেলে ঢুকাতে হবে যাতে করে মানব সমাজের ওসব প্রানঘাতী নিকৃস্ট ভাইরাস বিবেকবান, প্রকৃত ধার্মিক এবং সত্যপন্থি মানুষদের জন্য জান-মালের হুমকী সৃস্টি করতে না পারে।

আমরা এখানে সুরেশ্বরী, আটরশী, এনায়েতপুরী, চন্দ্রপুরী, দেওয়ানবাগী, রাজারবাগী ইত্যাদি পীর এবং তাদের অনুসারীদের ধর্মবিশ্বাসের প্রসংসা করছি না; কিন্তু আমরা শান্তিতে বিশ্বাসী কারন ইসলাম শান্তির ধর্ম, ইসলাম উদারতার ধর্ম, ইসলাম ক্ষমার ধর্ম, ইসলাম দানশীলতার ধর্ম, ইসলাম ধর্মনিরোপেক্ষতার ধর্ম। মহান আল্লাহ এবং তাঁর রাসুল আমাদের শিক্ষা দিয়েছেন যে, “ধর্মের ব্যাপারে কোন জবরদস্থী নেই।“ সবাইকে ধন্যবাদ।

Copyright © www.QuranResearchBD.org

 


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

*